ইনডোর প্লান্টের উপকারিতা :

বর্তমান যুগে বিশেষকরে শহরে ইট,কাঠ ও পাথড়ের দেয়ালের কাছে গাছেরা আজ  খুবই অসহায়।তবুও প্রকৃতিপ্রেমী মানুষেরা সবুজের একটুখানি ছোয়ায় নিজের মনকে  সহজেই প্রশান্ত করতে ঘরের ভেতর বা ছাদে কিংবা বাড়ির  সামান্য খোলা জায়গায়  গাছ লাগিয়ে থাকেন।ঘরের সৌন্দর্য বৃদ্ধিতে গাছ তথা ইনডোর প্লান্টের আইডিয়া  ঘরকে ভিন্নরূপে সাজানোর এক অপূর্ব সুযোগ।কিন্তু গাছগুলো অনেক ক্ষেত্রেই পর্যাপ্ত  আলো-বাতাস কিংবা যত্নের অভাবে মারা যায় অথবা সৌন্দর্য হারিয়ে ফেলে।তাই ঘর  সাজাতে জেনে বুঝে গাছ লাগালে তা খুব সহজেই অল্প পরিশ্রমে মনোরম পরিবেশ এনে দিতে পারে আপনার অন্দরে।চলুন জেনে নেই ইনডোর প্লান্ট ঘরের শোভা বাড়ানোর পাশাপাশি আর কি কি উপকার করে থাকে।

ক্যাকটাস :

এটি একদিকে যেমন ঘরের সৌন্দর্য অনেকগুণ বৃদ্ধি করে তেমনি অন্যদিকে এর যত্নের জন্য খুব বেশি সময় ব্যায় করতে হয় না।ঢাকার বিভিন্ন নার্সারিতে বিভিন্ন প্রজাতির ক্যাকটাস কিনতে পাওয়া যায় এবং এগুলোর এক একটির সৌন্দর্য এক এক রকম।কাঁটাযুক্ত এই অপূর্ব গাছটি খুব সহজেই রেখে দিতে পারেন ঘরে,বারান্দায় কিংবা জানালার পাশে।

জেসমিন বা বেলি :

এটি এমন একটি গাছ যা আপনার দুশ্চিন্তা দূর করে শরীর এবং মন উভয়কে সতেজ রাখতে সাহায্য করে ও ভালো ঘুম হয়।ঘরের এক কোণে এই গাছ লাগিয়ে রাখুন,এটি আপনার ঘরকে ঠান্ডা রাখবে এবং দারুণ সৌরভ ছড়াবে।

ফিগ প্লান্ট :

এটি কার্বন-ডাই-অক্সাইড,কার্বন মনোক্সাইড এবং অন্যান্য বিষাক্ত পদার্থ দূর করতে দারুনভাবে সাহায্য করে থাকে।এমনকি এটি সিগারেটের তৈরী ধোঁয়ার বিরুদ্ধে ও বেশ কার্যকর।তাই যারা ঘরে ধূমপান করেন তাদের ঘরের বাতাস দূষণমুক্ত করার জন্য এই গাছটি লাগাতে পারেন।

স্নেক প্লান্ট :

এই গাছের রং ও আকৃতির সাথে সাপের আকৃতির অনেক মিল পাওয়া যায়।এটি একধরনের পাতাবাহার নামে পরিচিত।এটি ঘরের ভেতর বাতাস দূষণমুক্ত রাখতে সহায়তা করে।ঘরের ভেতর আলো -ছায়া যুক্ত স্থানে এই গাছ সহজেই রাখতে পারেন।

স্পাইডার প্লান্ট :

সাদা আর সবুজ সংমিশ্রণের এই গাছটির পাতাগুলো চারিদিকে ছড়িয়ে থাকে বলে এটিকে স্পাইডার প্লান্ট বলা হয়ে থাকে।চিকন ও সরু পাতার এই গাছটি ঘরের শোভা বর্ধনে অতুলনীয়।নিয়মিত পানি দিলে আর প্রতিদিন ঘন্টা দুএক রোদে রাখলেই এটি সুন্দরভাবে বেড়ে ওঠে।ছোট বড় প্রায় সব নার্সারিতেই এই গাছ পাওয়া যায় আর দামও একদম নাগালের মধ্যে।

ঘরের শোভা বর্ধনের একটি চমৎকার উপকরণ হচ্ছে গাছ।আপনার একটুখানি নিয়মিত পরিচর্যায় প্রকৃতির অপরূপ সৌন্দর্যে ভরে উঠবে আপনার ঘর যা ক্লান্ত দিনের শেষে আপনাকে দিবে স্বর্গীয় সুখ।

 

 

Add a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: